ইবির ডায়েরি থেকে জিয়ার নাম বাদ, ছাত্রলীগের আনন্দ মিছিল

আমার ক্যাম্পাস, ইবি: ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) প্রকাশিত ডায়েরি থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের নাম বাদ দেয়ায় আনন্দ মিছিল করেছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

বুধবার বেলা ১২টায় ক্যাম্পাসে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহিনুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক জুয়েল রানা হালিমের নেতৃত্বে এ আনন্দ মিছিল করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ছাত্রলীগের টেন্ট থেকে আনন্দ মিছিলটি বের হয়ে ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে একই স্থানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত হয়।

সমাবেশে শাহিনুর রহমান বলেন, ‘জিয়াউর রহমান ছিল পাকিস্তানের দালাল। তার নাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ডায়েরিতে থাকতে পারে না।’

বক্তৃতাকালে তিনি ক্যাম্পাসে ছাত্রদল নেতাকর্মীদের বিশৃঙ্খলা করতে দেখা মাত্রই প্রতিহত করতেও নেতাকর্মীদের নির্দেশ দেন।

মিছিল ও সমাবেশে সালাহউদ্দিন আহমেদ সজল, আলমগীর হোসেন আলো, তৌকির মাহফুজ মাসুদ, ফয়সাল, সিদ্দিকী আরাফাতসহ নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

ছাত্রলীগে কোনো বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীর স্থান হবে না: সোহাগ

আমার ক্যাম্পাস রিপোর্ট: ছাত্রলীগে কোনো বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীর স্থান হবে না বলে কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ।

একই সঙ্গে আগামী জাতীয় নির্বাচনের আগেই বাংলাদেশ ছাত্রলীগের তৃণমূলের প্রতিটি ইউনিটকে ঢেলে সাজানো হবে বলেও ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

মঙ্গলবার রংপুর বিভাগের ছাত্রলীগের প্রতিনিধি সভা ও প্রশিক্ষণ কর্মশালায় ছাত্রলীগ সভাপতি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, রংপুর বিভাগ থেকেই শুরু করা হয়েছিল ছাত্রলীগের নিরক্ষরমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার কর্মসূচি। এই কর্মসূচি এখন সারা বাংলাদেশে চলমান রয়েছে। আমরা প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত নিরক্ষরমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার কর্মসূচি এ বছরেই সফল করবো।

ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন, এই কর্মসূচির পাশাপাশি আগামী জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে রংপুর বিভাগের প্রতিটি জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন, কলেজ, পৌর ও ওয়ার্ডসহ সকল ইউনিটকে ঢেলে সাজানো হবে।

আগামী জাতীয় নির্বাচনে যেন রংপুর বিভাগের ২২টি আসনই নৌকার প্রার্থীরা জয়ী হতে পারে সেজন্য সকলকে আন্তরিকভাবে এখন থেকেই কাজ করার নির্দেশ দেন তিনি।

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে তৃণমূলে যে উন্নয়ন হচ্ছে তা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের কাছে তা পৌঁছে দিতে পারি তাহলে আগামী জাতীয় নির্বাচনে আমরা আওয়ামী লীগকে বিজয়ী করতে পারবো।

এসময় তিনি অহেতুক মোটারসাইকেলের বড় শোডাউন না দিতে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি আসাদুজ্জামান আসাদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দিদার মোহাম্মদ নিজামুল ইসলাম, দফতর সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন শাহাজাদা, সহ-সম্পাদক রুহুল আমীন প্রমুখ।

‘পুলিশ যদি ছাত্রদের জীবন ধ্বংসে নাটক সাজায় জনগণ যাবে কোথায়’

আমার ক্যাম্পাস, ঢাকা: ‘স্বয়ং পুলিশই যদি নিরপরাধ ছাত্রদের জীবন ধ্বংস করার জন্য জঘন্য নাটক সাজায় তাহলে জনগণ যাবে কোথায়’ মন্তব্য করে বিবৃতি দিয়েছে ছাত্রশিবির ।

গত ‘পাঁচদিন আগে’ গ্রেফতারের পর ‘গতকাল শিবির নেতাকর্মীদের আম বাগান থেকে অস্ত্র,গুলি ও হাতবোমাসহ’ গ্রেপ্তার দেখানোর প্রতিবাদ বিবৃতিতে এ মন্তব্য করেন শিবিরের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।

যশোর জেলা শিবিরের সভাপতি রাফিদ হাসান, শিবির কর্মী আবুল কাসেম ও তরিকুল ইসলামকে গ্রেফতারের প্রতিক্রিয়ায় এ বিবৃতি দেয় শিবির।
যৌথ বিবৃতিতে ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত ও সেক্রেটারি জেনারেল মোবারক হোসাইন বলেন,যশোরে ৫দিন আটক রাখার পর শিবির নেতৃবৃন্দকে নিয়ে পুলিশের অস্ত্র ও বিরষ্ফোরক উদ্ধারের নাটকে পুরো জাতি বিষ্মিত।

তারা বলেন, বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মতিউর রহমান গণমাধ্যমকে বলেছেন, ৫ই জুন বিকালে শিবির নেতাদের আম বাগান থেকে অস্ত্র, গুলি ও হাতবোমাসহ গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। যা সম্পূর্ণ বানোয়াট ও ঘৃণ্য মিথ্যাচার। মূলত গত ১লা জুন সকাল ৮টায় বেনাপোল পোর্ট থানার কাগজপুকুর দক্ষিণপাড়া প্রাইমারি স্কুলের সামনে থেকে এএসআই জহিরের নেতৃত্বে তাদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

তাৎক্ষণিক ভাবে থানায় যোগাযোগ করা হলে পুলিশ তাদের গ্রেপ্তারের বিষয়টি স্বীকার করে। গ্রেপ্তারকৃতদের পরিবারের কাছেও গ্রেপ্তারের কথা স্বীকার করে তারা থানায় আছে জানানো হয়।

গ্রেপ্তারের পর তাদের আদালতে হাজির করার কথা। কিন্তু গ্রেপ্তারের পর ৪ দিন পেরিয়ে গেলেও অজ্ঞাত কারণে তাদের আদালতে হাজির করা হয়নি। উল্টো গ্রেপ্তারের কথা অস্বীকার করে। এ বিষয়ে উদ্বেগ জানিয়ে এবং অবিলম্বে তাদের সন্ধান দাবি করে ছাত্রশিবিরের পক্ষ থেকে বিবৃতি প্রদান করা হয়। যা বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রচারিত হয়েছে। অথচ খবর প্রকাশের একদিন পর পুলিশ তাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র ও বিষ্ফোরক আইনে মিথ্যা মামলা দিয়ে যশোর আদালতে পাঠিয়েছে। পুলিশ তাদের নীতিহীন বেআইনি অপকর্মকে আড়াল করতেই এই অস্ত্র ও বোমা উদ্ধার নাটক সাজিয়েছে তাতে কোন সন্দেহ নাই।

নেতৃবৃন্দ বলেন, এই ঘটনা পুলিশের পবিত্র দায়িত্বের প্রতি চরম অবমাননার নিকৃষ্ট নজির হয়ে থাকবে। পবিত্র রমজান মাসেও পুলিশের এই অমানবিক কর্মকাণ্ডে জনগণ দারুণ ভাবে হতাশ ও ক্ষুদ্ধ। এই ধরণের অপকর্ম পুলিশের প্রতি জনগণের আস্থাহীনতাই শুধু বৃদ্ধি করবে।

অবিলম্বে নিরপরাধ শিবির নেতাদের নামে সাজানো মামলা প্রত্যাহার করে তাদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানান তারা।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদস্য নির্বাচিত হলেন ঢাকা কলেজের শাওন খান

আমার ক্যাম্পাস, ঢাকা: বাংলাদেশ ছাত্রলীগে কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন ঢাকা কলেজের মেধাবী ছাত্র শাওন খান।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ ছাত্রলীগের অফিসিয়াল প্যাডে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক কর্তৃক স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে একথা জানানো হয়।

এতে বলা হয়ে, ‘‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ ধারণ করে এবং আধুনিক বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা দেশরত্ন শেখ হাসিনার ‘রূপকল্প ২০২১ ও ২০৪১’বাস্তবায়নে তার ভুমিকা প্রশংসনীয়। তাকে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মনোনীত করা হলো।’’

নবনির্বাচিত বাংলাদেশ ছাত্রলীগে কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সদস্য শাওন খান বলেন, ‘কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য নির্বাচিত করার জন্য আমি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইনসহ কেন্দ্রীয় নেতাদের প্রতি কৃতজ্ঞ। আমি আমার সম্মানটুকু পরিবারের জন্য উৎসর্গ করলাম।’

তিনি আরো বলেন, ‘ছাত্রলীগকে তৃণমূল পর্যায়ে শক্তিশালী করার মধ্য দিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘রূপকল্প ২০২১ ও ২০৪১’বাস্তবায়নের জন্য ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যাব। আগামী নির্বাচনে সারাদেশে আওয়ামী লীগের বিজয় সুনিশ্চিত করার জন্য ছাত্রলীগকে সুসংগঠিত করতে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যাবো এবং আমার উপর অর্পিত দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করার জন্য সকলের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করছি।’

জানা যায়, শাওন খান গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদ পুরে সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহন করেন। তিনি স্কুল জীবন থেকেই ছাত্র রাজনীতির সাথে জড়িত।

ঘূর্ণিঝড় মোরা: কক্সবাজার-রাঙামাটিতে ৭ জনের মৃত্যু

ঘূর্ণিঝড় মোরার তাণ্ডবে আতঙ্কিত হয়ে ও গাছ চাপা পড়ে কক্সবাজার ও রাঙামাটি জেলায় ৭ জনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে কক্সবাজারে পাঁচজন ও রাঙামাটিতে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। বিস্তারিত প্রতিনিধিদের পাঠানো প্রতিবেদনে।

কক্সবাজার প্রতিনিধি জানান, কক্সবাজার উপকূল অতিক্রম করেছে ঘূর্ণিঝড় ‘মোরা’। মঙ্গলবার ভোর ৪টায় সেন্টমার্টিন দ্বীপ থেকে ঝড়ো ও দমকা হাওয়ায় তাণ্ডবলীলা শুরু করে বেলা ১২টা নাগাদ কুতুবদিয়া দিয়ে শেষ করেছে এর প্রস্থান।

এসময় থেমে থেমে ৮০ থেকে ১৩৫ কিলোমিটার বেগে বাতাস প্রবাহিত হয়েছে আঘাত হানে মোরা। বাতাসের তোড়ে সাগর উত্তাল থাকলেও সকালে সাগরে ভাটা থাকায় ব্যাপক প্রাণহানী থেকে বেঁচে গেছেন কক্সবাজারবাসী।

কিন্তু এরপরও মোরার তাণ্ডবে ঝড়ো ও দমকা হাওয়ায় বিধ্বস্ত হয়ে গেছে কক্সবাজার উপকূলের সোয়ালাখেরও বেশি কাঁচা ও আধাপাকা বাড়ি-ঘর।

উপড়ে পড়েছে অগণিত গাছপালা। ব্যাপকহারে বিদ্যুতের খুটি ভেঙে পড়ায় পুরো কক্সবাজারে বিদ্যুৎ বিপর্যয় দেখা দিয়েছে। কক্সবাজার জেলার কুতুবদিয়া, মহেশখালী, পেকুয়া, রামু, উখিয়া ও টেকনাফে বাড়ি-ঘর বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বিশেষ করে টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপ ও সেন্টমার্টিনে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তুলনামূলক বেশি। এসময় ঘূর্ণিঝড়ের তীব্রতায় আতঙ্কিত হয়ে এবং ঘরের চালায় গাছ পড়ে কক্সবাজারে মারা গেছেন নারীসহ ৫ জন।

তারা হলেন, কক্সবাজার পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের ৬নং জেডিঘাট এলাকায় বদিউল আলমের স্ত্রী মরিয়ম বেগম (৫৫), চকরিয়ার বড়ভেওলা এলাকার মৃত নূর আলম সিকদারের স্ত্রী সায়েরা খাতুন (৬৫), একই উপজেলার ডুলাহাজারার পূর্ব জুমখালী এলাকার আবদুল জব্বারের ছেলে রহমত উল্লাহ (৫০), পেকুয়া উপজেলার উপকূলীয় উজানটিয়া ইউনিয়নের নতুন ঘোনা পেকুয়ারচর এলাকার আজিজুর রহমানের ছেলে আবদুল হাকিম সওদাগর (৫৫), এবং সদরের ইসলামাবাদ ইউনিয়নের গজালিয়া গ্রামের শাহাজাহানের মেয়ে শাহিনা আকতার (১০)। এসময় আহত হয়েছে প্রায় শতাধিক লোকজন। তাদের জেলা সদর ও উপজেলা হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

রাঙামাটি প্রতিনিধি জানান, ঘূর্ণিঝড় মোরার ভয়াবহতায় বসতঘরের ওপর গাছ চাপা পড়ে রাঙামাটি শহরে এক স্কুলছাত্রী ও অপর এক নারী নিহত হয়েছেন।

নিহত স্কুলছাত্রীর নাম জাহিদা সুলতানা মাহিমা (১৪) এবং অপর নারী হাজেরা বেগম (৪৫)। রাঙামাটি সদর হাসপাতালে তাদের নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আবু তৈয়ব মৃত ঘোষণা করেন।

সকালে ঘূর্ণিঝড় শুরু হলে শহরের ভেদভেদী ও আসামবস্তী এলাকায় বসত ঘরের ওপর গাছের ডাল ভেঙে পড়লে গাছ চাপা পড়ে ঘটনাস্থলে দ্জুনই মারা যায়। এছাড়া জুনায়েদ নামে এক শিশু আহত হয়েছে। তাকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ঘূর্ণিঝড় মোরা আঘাত হানে। তিন ঘণ্টাব্যাপী ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে রাঙামাটি শহরের দুই শতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে।

বসতঘর ও রাস্তার ওপর ভেঙে পড়েছে গাছ পালা। ক্ষতি সাধিত হয়েছে বৈদ্যুতিক লাইন কেবিল টিভির লাইন ও টেলিফোন লাইন ও মোবাইল টাওয়ারের বৈদ্যুতিক লাইন ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় রাঙামাটি শহর বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

রুদ্ধদ্বার বৈঠক শেষ, খালেদার সঙ্গে যে কথা হয়েছে ইইউ প্রতিনিধিদের

ঢাকা: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধি দলের বৈঠক সম্পন্ন।সোমবার বিকেল ৫টায় খালেদা জিয়ার গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শাইরুল কবির খান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
দলীয় সূত্র থেকে জানা গেছে, কূটনৈতিকদের সঙ্গে ধারাবাহিক আলোচনার অংশ হিসেবে এবং বাংলাদেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনার জন্য বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধি দলের এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

এমপিকে শাসন করেছি: ওবায়দুল কাদের

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘আমি এমপি মো. ছানোয়ার হোসেনকে শাসন করেছি। এটা আমাদের আওয়ামী লীগ পরিবারের বিষয়। দলের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে এটা আমি করতেই পারি।’টাঙ্গাইল-৫ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য মো. ছানোয়ার হোসেনকে চড় মারা-সংক্রান্ত খবর গণমাধ্যমে প্রকাশের পর যুগান্তরকে এক প্রতিক্রিয়ায় এ কথা বলেন তিনি।সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘আমি এমপি মো. ছানোয়ার হোসেনকে শাসন করেছি। এটা আমাদের আওয়ামী লীগ পরিবারের বিষয়। দলের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে এটা আমি করতেই পারি।’টাঙ্গাইল-৫ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য মো. ছানোয়ার হোসেনকে চড় মারা-সংক্রান্ত খবর গণমাধ্যমে প্রকাশের পর যুগান্তরকে এক প্রতিক্রিয়ায় এ কথা বলেন তিনি।
সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘আমি এমপি মো. ছানোয়ার হোসেনকে শাসন করেছি। এটা আমাদের আওয়ামী লীগ পরিবারের বিষয়। দলের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে এটা আমি করতেই পারি।’টাঙ্গাইল-৫ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য মো. ছানোয়ার হোসেনকে চড় মারা-সংক্রান্ত খবর গণমাধ্যমে প্রকাশের পর যুগান্তরকে এক প্রতিক্রিয়ায় এ কথা বলেন তিনি।

৫ জানুয়ারি নির্বাচন দিতে বাধ্য হয়েছি: রকিবউদ্দিন

ঢাকা: সংবিধান ও গণতন্ত্রের ধারাবাহিকতা রক্ষার জন্য ৫ জানুয়ারির নির্বাচন ছাড়া কমিশনের সামনে আর কোনো পথ খোলা ছিল না বলে মন্তব্য করেছেন বিদায়ী সিইসি কাজী রকিবউদ্দিন আহমদ। তিনি বলেন, ৫ জানুয়ারি নির্বাচন করতে বাধ্য হয়েছি।বুধবার দুপুরে আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশনের মিডিয়া সেন্টার আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।রকিবউদ্দীন আহমদ বলেন, ৫ জানুয়ারির নির্বাচন না হলে দেশে অরাজক পরিস্থিতির সৃষ্টি হতো।

নির্বাচন অনেকটাই ‘রাজনীতির খেলা’: বিদায়ী সিইসি

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
ঢাকা: দশম জাতীয় সংসদের অধিকাংশ সদস্য বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ার বিষয়টিকে ‘রাজনীতির খেলা’ বলে মন্তব্য করেছেন বিদায়ী প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ।বুধবার আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশনের মিডিয়া সেন্টারের সম্মেলনেকক্ষে বিদায়ী সংবাদ সম্মেলন তিনি এ মন্তব্য করেন।
২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচন প্রসঙ্গে রকিবউদ্দীন বলেন, সমঝোতা না হওয়ায় নির্বাচন করা চ্যালেঞ্জের বিষয় হয়ে যায়। সাংবিধানিক ধারাবাহিকতা রক্ষায় নির্বাচন করা ছাড়া কোনো উপায় ছিল না।

সার্চ কমিটিতে নামের তালিকা জমা আ.লীগের সার্চ কমিটিতে নামের তালিকা জমা আ.লীগের

ঢাকা: নির্বাচন কমিশন গঠনে রাষ্ট্রপতির গঠিত সার্চ কমিটিতে ৫ সদস্যের নামের তালিকা জমা দিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। মঙ্গলবার সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপ-সচিব বরাবর চিঠির মাধ্যমে নামের তালিকা জমা দেয়া হয়। নির্বাচন কমিশন গঠনে রাষ্ট্রপতির গঠিত সার্চ কমিটিতে ৫ সদস্যের নামের তালিকা জমা দিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। মঙ্গলবার সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপ-সচিব বরাবর চিঠির মাধ্যমে নামের তালিকা জমা দেয়া হয়। নির্বাচন কমিশন গঠনে রাষ্ট্রপতির গঠিত সার্চ কমিটিতে ৫ সদস্যের নামের তালিকা জমা দিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। মঙ্গলবার সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপ-সচিব বরাবর চিঠির মাধ্যমে নামের তালিকা জমা দেয়া হয়।

image missing image missing