বিসিএস আবেদনে এনআইডি বাধ্যতামূলক

আমার ক্যাম্পাস রিপোর্ট: বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসে (বিসিএস) আবেদন করতে হলে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। আবেদন ফরমে এনআইডি নম্বর দেওয়া ছাড়া কেউ বিসিএস পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার সুযোগ পাবে না। বৃহস্পতিবার সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) কমিশন সভায় এই সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে যেসব পরিক্ষার্থীর কাছে এখনও এনআইডি নেই তাদের জন্য বিকল্প চিন্তা করছে পিএসসি।

৩৮তম বিসিএস থেকে এই নিয়ম কার্যকর হচ্ছে। পিএসসি চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ সাদিক এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। ৩৮তম বিসিএস থেকেই পরীক্ষার্থীরা বাংলা ও ইংরেজিতে উত্তর দেওয়ার সুযোগ পাবে বলেও জানান তিনি।

পিএসসি চেয়াম্যান জানান, একটা সিম কিনতে বা ব্যাংকে অ্যাকাউন্ট করতে যদি এনআইডি লাগে, তাহলে বিসিএস পরীক্ষা দিতে কেন আইডি নম্বর চাইব না?

দেশে বর্তমানে ১ কোটি ১৭ লাখ নাগরিকের হাতে জাতীয় পরিচয়পত্র নাই। নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী দেশের সকল নাগরিকের হাতে এনআইডি পৌঁছে না দেওয়া পর্যন্ত এটি বাধ্যতামূলক না করতে বলা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পিএসসি চেয়ারম্যান বলেন, যারা বিসিএস পরীক্ষা দেবে তাদের বয়স ১৮ বছরের নিচে নয়। ফরমে যদি শুধু নাম আর ছবি লাগিয়ে আবেদন করা হয়, তখন কেউ যদি ছবি বদলে ফেলে- আপনি তো তাকে চিনতে পারবেন না। সেই দিকটা বিবেচনা করেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তারপরও যদি কারো এ সংক্রান্ত কোনো সমস্যা হয়, সেক্ষেত্রে বিকল্প ব্যবস্থা বিবেচনা করা হবে।

তিনি জানান, পিএসসি যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেটি সবার গ্রহণ করা উচিত। কারণ এটি ভালোর জন্য করা হচ্ছে। এটি করা হলে সবাইকে শনাক্ত করা সুবিধা হবে।

দেশের ১ কোটি ১৭ লাখ নাগরিকের হাতে কোনো এনআইডি নেই এই মূহুর্তে পিএসসির এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া সম্পর্কে জানতে চাইলে ইসি সচিব মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ্ বলেন, যারা বিসিএস পরীক্ষা দেবে তাদের বয়স ২৫ বছর বা তার বেশি। সেক্ষেত্রে কোনো সমস্যা হওয়ার কথা নয়। যদি কেউ সত্যি অর্থে এই সমস্যায় পড়ে তাহলে কমিশনে আসলে বিষয়টি বিবেচনা করে দেখা হবে।

চলতি মাসেই দুই হাজার একশ পদে নিয়োগ দিতে ৩৮তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে। ৩৮তম বিসিএস থেকেই পরীক্ষার্থীরা বাংলা ও ইংরেজিতে উত্তর দেওয়ার সুযোগ পাবেন। এছাড়া লিখিত পরীক্ষায় ৯০০ নম্বরের মধ্যে বাংলাদেশ বিষয়াবলীর মধ্যে আলাদা করে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ে ৫০ নম্বরের প্রশ্ন রাখা হবে বলেও জানান পিএসসি চেয়ারম্যান।